সালাফি কারা?

সালাফিদের পরিচয়

সালাফীদের পরিচয় দিতে গিয়ে সৌদি আরবের ‘ইলমী গবেষণা ও ফাতাওয়া প্রদানের স্থায়ী কমিটির (আল-লাজনাতুদ দাইমাহ লিল বুহূসিল ‘ইলমিয়্যাহ ওয়াল ইফতা) ‘আলিমগণ বলেছেন,
السلفيون: جمع سلفي نسبة إلى السلف، وقد تقدم معناه، وهم الذين ساروا على منهاج السلف من اتباع الكتاب والسنة والدعوة إليهما والعمل بهما، فكانوا بذلك أهل السنة والجماعة.
“ ‘সালাফিয়্যূন’ শব্দটি ‘সালাফী’ শব্দের বহুবচন। সালাফদের দিকে সম্পৃক্ত করে ‘সালাফী’ বলা হয়। ‘সালাফ’ শব্দের অর্থ কিছুপূর্বে গত হয়ে গেছে। যারা কিতাব ও সুন্নাহ’র অনুসরণ করা, এ দুয়ের দিকে মানুষকে আহ্বান করা এবং এ দুয়ের ওপর আমল করার ক্ষেত্রে সালাফদের মানহাজ অনুসরণ করে, তারাই সালাফী। আর এরূপ অনুসরণের কারণে তারাই আহলুস সুন্নাহ ওয়াল জামা‘আত।” [ফাতাওয়া লাজনাহ দাইমাহ, ফাতওয়া নং: ১৩৬১]

আশ-শাইখুল ‘আল্লামাহ যাইদ বিন হাদী আল-মাদখালী (রাহিমাহুল্লাহ) [মৃত: ১৪৩৫ হি./২০১৪ খ্রি.] বলেছেন,
أصحاب النبي ﷺ هم السلف، ومن جاء بعدهم ونهج نهجهم واتبع أثرهم يلحق بهم؛ فيقال عنه: سلفي، وعقيدته السلفية.
“নাবী ﷺ এর সাহাবীগণ হলেন সালাফ। যে ব্যক্তি তাঁদের পরে এসে তাঁদের পথে চলেছে এবং তাঁদের পদাঙ্ক অনুসরণ করেছে, সেও তাঁদের অন্তর্ভুক্ত। তার ব্যাপারে বলা হবে—সে একজন সালাফী, আর তাঁর ‘আক্বীদাহ হলো সালাফী ‘আক্বীদাহ।” [‘আল্লামাহ যাইদ আল-মাদখালী (রাহিমাহুল্লাহ), আল-আজউয়িবাতুল আসারিয়্যাহ ‘আনিল মাসাইলিল মানহাজিয়্যাহ; পৃষ্ঠা: ৭৯; আল-মীরাসুন নাবাউয়ী (আলজিয়ার্স) এবং দারু আদ্বওয়াইস সালাফ (কায়রো) কর্তৃক প্রকাশিত; সন: ১৪৩৩ হি./২০১২ খ্রি. (১ম প্রকাশ)]

সালাফি মানহায

যারা সালাফদের বুঝ অনুযায়ী কুরআন-সুন্নাহ’র অনুসরণ করে, তারাই সালাফী। আর সালাফী দা‘ওয়াতের মর্মার্থও এটাই যে, কিতাব ও সুন্নাহ অনুসরণ করতে হবে সালাফদের বুঝ অনুযায়ী।

ইমাম মুক্ববিল বিন হাদী আল-ওয়াদি‘ঈ (রাহিমাহুল্লাহ) [মৃত: ১৪২২ হি./২০০১ খ্রি.] কে সালাফী দা‘ওয়াতের মর্মার্থ কী– এরূপ প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন,
مفهوم الدعوة السلفية هو التمسك بالكتاب والسنة على ما فَهِمَ السلف الصالح.
“সালাফী দা‘ওয়াতের মর্মার্থ হলো—ন্যায়নিষ্ঠ সালাফগণের বুঝ অনুযায়ী কিতাব ও সুন্নাহকে আঁকড়ে ধরা।” [মাজমূ‘উ ফাতাওয়াল ওয়াদি‘ঈ, খণ্ড: ১; পৃষ্ঠা: ৩৩-৩৪]

যারা সালাফদের মানহাজ অনুসরণ করে তাদের মহা সাফল্যের ব্যাপারে মহান আল্লাহ বলেছেন,
وَالسَّابِقُونَ الْأَوَّلُونَ مِنَ الْمُهَاجِرِينَ وَالْأَنْصَارِ وَالَّذِينَ اتَّبَعُوهُمْ بِإِحْسَانٍ رَضِيَ اللَّهُ عَنْهُمْ وَرَضُوا عَنْهُ وَأَعَدَّ لَهُمْ جَنَّاتٍ تَجْرِي تَحْتَهَا الْأَنْهَارُ خَالِدِينَ فِيهَا أَبَدًا ۚ ذَٰلِكَ الْفَوْزُ الْعَظِيمُ.
“মুহাজির ও আনসারদের মধ্যে যারা প্রথম সারির অগ্রণী, আর যারা তাদের যথাযথ অনুসরণ করেছে, আল্লাহ তাদের প্রতি সন্তুষ্ট আর তারাও তাঁর প্রতি সন্তুষ্ট। তাদের জন্য তিনি প্রস্তুত করে রেখেছেন জান্নাত, যার তলদেশে ঝরনাধারা প্রবাহিত। সেখানে তারা চিরকাল থাকবে। এটাই মহাসাফল্য।” [সূরাহ তাওবাহ: ১০০]

এই মহান মানহাজের অনুসারীদের ব্যাপারেই রাসূলুল্লাহ ﷺ বলেছেন,
لاَ تَزَالُ طَائِفَةٌ مِنْ أُمَّتِي ظَاهِرِينَ عَلَى الْحَقِّ لاَ يَضُرُّهُمْ مَنْ خَذَلَهُمْ حَتَّى يَأْتِيَ أَمْرُ اللَّهِ وَهُمْ كَذَلِك.
“আমার উম্মতের একটি দল সর্বদাই হকের উপর প্রতিষ্ঠিত থাকবে। বিরোধীরা তাদের কোনো ক্ষতি সাধন করতে পারবে না। এমনকি এভাবেই কিয়ামত চলে আসবে, আর তারা ওইভাবেই থাকবে।” [সাহীহ মুসলিম, হা/১৯২০; ‘প্রশাসন ও নেতৃত্ব’ অধ্যায় (৩৪); পরিচ্ছেদ- ৫৩]
· অনুবাদক: মুহাম্মাদ ‘আব্দুল্লাহ মৃধা
অনুবাদক: মুহাম্মাদ ‘আব্দুল্লাহ মৃধা

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *